কালের বিবর্তনে হারিয়ে যাচ্ছে খেজুরের রস

কালের বিবর্তনে হারিয়ে যেতে বসেছে খেজুরের রস। এক সময় সিরাজদিখানের গ্রামগঞ্জের বাজারে খেজুরের রসের সমাহার ছিল। ভোর হলেই গাছিরা রস নিয়ে উপজেলার বাজারগুলোতে রস বিক্রয়ের জন্য বসতেন, কিন্তু এখন আর তেমন চোখে পড়ে না। উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে শিশির ভেজা ভোরে তাদের হাক-ডাক এখন আর শোনা যায় না।

উপজেলার গ্রাম এলাকায় শীতের ঐতিহ্য ছিল মিষ্টি খেজুর রস। মাত্র এক যুগের মাথায় খেজুর রসের স্বাদ ভুলতে বসছে মানুষ।

একটি এনজিওর হিসাব অনুযায়ী ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত জেলার লক্ষাধিক খেজুর গাছ থেকে রস সংগ্রহ করা হতো। রসদিয়ে পিঠা পায়েশ খাওয়ার পাশাপাশি দেড়শ মেট্রিক টন গুড় উৎপাদন করা হতো।

গত এক যুগে ক্রমেই খেজুর গাছের সংখ্যা কমে যাওয়ার কারণে খেজুর রস কমতে থাকে। ক্রমান্বয়ে এখন তা বিলুপ্ত হওয়ার পথে।